ভাল ছেলেদের প্রেমিকা না থাকার ১১টি কারণ; ৮ নং কারণ বেশি দায়ী

ছেলেটার ব্যক্তিত্ব আছে। কত সুন্দর করে কথা বলে। নম্র, ভদ্র, সদাচারী। পড়াশুনায় খুবই সিরিয়াস। ক্যারিয়ার সচেতন সে। টিউশনি করে

পড়াশুনা করছে, সংগ্রামী জীবন। মা-বাবাকে সে এখন থেকেই দেখাশুনা করে। কাজের ক্ষেত্রেও দক্ষ ও পারদর্শী, সময়ানুবর্তী। একসাথে এতকিছু সামলাতে পারে সে। সকল বন্ধুই ভালবাসে তাকে।

এরপরও এই ভাল ছেলেটার ভাগ্যে প্রেম জোটেনি। অথবা, ক্ষণিক মুগ্ধতায় কোন প্রেমিকা এসেও স্থায়ী হয়নি। হারিয়ে গেছে। তারপর হৃদয় ভাঙার গোপন যন্ত্রণা বয়ে নিয়ে বেড়ায় এই ‘ভাল’ ছেলেরা। অথচ আত্মীয়-স্বজন বা বন্ধুরা এই ভাল ছেলেটার জন্য একটা লক্ষ্মী বউ প্রত্যাশা করতেই পারে। কিন্তু বাস্তবে কি তাই ঘটে?

এমন কেন হয়? আসুন জেনে নেই-

১। ভালো ছেলেরা ‘বোরিং’ হয়:

মেয়েদের একটা চিরকালের আগ্রহ আছে একটু খারাপ বা দুষ্টু ছেলেদের প্রতি। এমন ছেলেদের প্রেমিকা হওয়াকে মেয়েদের কাছে একটা চ্যালেঞ্জ মনে হয়। অন্যদিকে ভাল ছেলেদেরকে তাঁদের চোখে মনে হয় “বোরিং”।

২। মায়ের কথা মেনে চলে:

বেশিরভাগ ভাল ছেলে মায়ের কথা খুব শোনে। বাবা-মায়ের পছন্দ ছাড়া বিয়ে করবো না, কিংবা সব সিধান্তে মাকে শামিল করে তারা। এই ব্যাপারটা বেশিরভাগ মেয়ে পছন্দ করে না।

৩। তারা ছলকলা বোঝে না:

প্রেম করতে ও কোন মেয়েকে প্রেমে ফেলতে গেলে একটু কৌশল, একটু ছলকলা জানতেই হয়। বলাই বাহুল্য যে ভালো ছেলেরা এসব থেকে একশ’ হাত দূরে থাকেন এবং এগুলো বোঝেনও না।

৪। গায়ে পড়া স্বভাব নেই:

ভালো ছেলেরা শুধু মেয়ে কেন, কারো সাথেই গায়ে পড়ে আলাপ করতে পারেন না। এমনকি কেউ আলাপ করতে এলেও অনেকেই নিজের মাঝে গুটিয়ে থাকেন। ফলে তাঁদের পরিচিত মানুষের পরিধি হয় অনেক কম। আর মেয়েদের সাথে পরিচয়ও হয় কম।

৫। শুরুতেই সিরিয়াস হয়ে যায়:

কারো সাথে প্রথম প্রথম ডেটিং-এই এই ধরণের ছেলেরা খুব বেশী সিরিয়াস হয়ে যায়। মেয়েটির ওপরে অধিকার ফলাতে থাকে। আর এটাই সম্পর্কটাকে সামনে এগোতে বাঁধা দেয়।

৬। প্রচণ্ড আবেগী হয়:

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভালো ছেলেরা হয় প্রচণ্ড আবেগী ও স্পর্শকাতর। এরা খুব অভিমানী স্বভাবেরও হয়। তাই তুচ্ছ কারণে এদের সম্পর্ক ভাঙে এবং নতুন সম্পর্ক হয় না।

৭। খারাপ মেয়েদের খপ্পরে পড়ে:

বেশিরভাগ ভালো ছেলেই সত্য ও মিথ্যার মাঝে পার্থক্য বুঝতে পারে না। ফলে তারা সুবিধালোভী কিছু খারাপ মেয়েদের খপ্পড়ে পড়ে এবং অন্য মেয়েদের উপর থেকেও বিশ্বাস হারিয়ে ফেলে।

৮। মিথ্যা বলতে পারে না:

প্রেমের সম্পর্কে টুকটাক নির্দোষ মিথ্যা থাকেই। নিজের সম্পর্কে একটু বাড়িয়ে বলা, নিজেকে একটু হিরো সাজিয়ে উপস্থাপন করা ইত্যাদি ভালো ছেলেরা পারেই না একদম। ফলে মেয়েরাও পটে না সহজে।

৯। সম্পর্কভীতি কাজ করে:

প্রেম করলে কী হবে? যদি বিয়ে না করতে পারি? বাসায় জানলে কী হবে? কীভাবে প্রপোজ করবো? সম্পর্ক নিয়ে ইত্যাদি হরেক রকম ভীতি কাজ করে অনেকের মনেই। আর এর ফলে তাঁদের প্রেম করাটাই হয়ে ওঠে না।

১০। ব্যক্তিত্বের অহমিকা:

কোন মেয়েকে প্রপোজ করা বা তার মন জয় করতে দীর্ঘদিন লেগে থাকাকে ব্যক্তিত্ববান ভাল ছেলেরা পছন্দ করেন না। কোন মেয়ে সামান্য অবজ্ঞা করলেই তারা আর অগ্রসর হন না। প্রেমের জন্য নিজের ব্যক্তিত্বকে ছোট করতে চান না তারা। অনেক সময় কোন মেয়ের ইতিবাচক উপেক্ষাকেও বুঝতে পারেন না তারা।

১১। ক্যারিয়ার নিয়ে বেশী সচেতন:

বেশিরভাগ ভালো ছেলেই নিজের লেখাপড়া ও ক্যারিয়ার নিয়ে খুব ব্যস্ত থাকেন। আর এই সবের মাঝেই হারিয়ে যায় প্রেম ও অন্যান্য ব্যাপার। যখন বুঝতে পারেন, ততক্ষণে দেরি হয়ে গেছে।

অতএব, ভাল ছেলেরা যদি ক্যারিয়ার চান তো সেটা নিয়ে থাকাই তাদের জন্য মঙ্গলজনক। প্রেমের দিকে মন দিলে তাদের ক্যারিয়ারের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক। আর যদি প্রেমে সাফল্য চান, তবে উপরের ১১টা বিষয়ে সচেতন থেকে নিজেকে বদলাতেই হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*