চিরতরে ব্রণ ও মেছতার দাগ দূর করার সহজ উপায়

মুখে ব্রণ ও মেছতার দাগ থাকলে তা দেখতে কেমন লাগে তা আমরা সবাই জানি। এছাড়াও মাঝে মাঝে মুখে ছোপ ছোপ দাগও দেখা যায়। যা মেছতা নামে পরিচিত। আর এসব দাগ নিয়ে অনেকই বিব্রত হয়ে থাকে। যা সত্যিই একটা দুঃজনক বিষয়।

কেননা এই দাগ মুখের সৌন্দর্য অনেকাংশে নষ্ট করে দেয়। রুপের অন্যতম শর্ত হলো নিঁখুত ত্বক। কিন্তু রুপ তো পরের বিষয়, তার আগে মুখের নানা রকম দাগ নিয়েও অনেকেই দুশ্চিন্তায় ভোগেন।

মেছতার দাগ দূর করবেন।

কেননা এই দাগ দূর করার উপায় তাদের জানা নেই। আপনি বাজারে হয়ত নানা রকম ক্রিম, লোশন কিনতে পারবেন এবং অনেকে এগুলো ব্যবহারও করে থাকেন। তবে তেমন কোন স্থায়ী সমাধান হয়না। আজা আপনাদের জানিয়ে দিচ্ছি যে , প্রাকৃতিক উপায়ে যেভাবে ব্রণ ও মেছতার দাগ দূর করবেন।

এক নজরে দেখে নিন মেছতা ও ব্রণের দাগ দূর করার উপায়:

ব্রণের দাগ দূর করার উপায়:

চন্দন গুঁড়ার সাথে সামন্য গোলাপজল মিশিয়ে মুখে লাগান। এরপর ঠাণ্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্রণের দাগের উপরে মধু লাগতে পারেন। এতে দাগ ফিকে হয়ে আসবে আস্তে আস্তে।

তবে মধু ব্যবহারে কোন প্রতিক্রিয়া হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে খেয়াল রাখুন। সাধারণ ও তৈলাক্ত ত্বকের দাগ দূর করার জন্য শশার রস ও আলুর রস খুবই উপকারী। শশার রস ও আলুর রস দিয়ে ১ মিনিট রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন। রোজ এই পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিলে দারুন ফলাফল মিলবে।

যদি আপনার ত্বক শুধু মাত্র তৈলাক্ত হয় তাহলে টক দই, লেবুর রস এবং আটা মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে ফেলুন এরপর সেই প্যাক সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করুন।

অ্যালোভেরার রস রোজ ব্রণের দাগের উপলে লাগাতে পারলে ব্রণের দাগ হালকা হয়ে আসেব। মিশ্র ও সাধারণ ত্বক হলে ত্বকে ল্যাভেন্ডার এর তেল লাগাতে পারেন। আর যে কোন ত্বকের দাগ কমাতে পাকা কলার পেস্ট ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও কাঁচা হলুদ, টমেটোর রসও লাগতে পারেন।

মেছতার দাগ দূর করার উপায়:

প্রতিদিন নিয়ম করে লেবুর রস মাখুন মুখে। অ্যালোভেরার জেল ও আলুর পেস্টও ব্যবহার করতে পারেন। আমন্ড অয়েল ও মধু মিলিয়ে মুখে হালকা করে ঘষুন, তারপর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কমলা লেবুর খোসার গুঁড়ো করে তার সাথে দুধ মিশিয়ে নিয়মিত ব্যবহার করতে অতিদ্রুত ফল পাবেন। মেছতার স্থানে লেবুর রস, সামান্য ভিনেগার ব্যবহার করা যেতে পারে। লেবুর রস, কাঁচা পেপে ও মধু দিয়ে ফেস প্যাক বানিয়ে নিন। এটি মেছতার দাগ দূর করতে দারুণ কাজের একটা ফেস প্যাক।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*